মেনু নির্বাচন করুন
ভোলা শহর থেকে প্রায় ০২ কি.মি. দক্ষিণে ভোলা পি.টি.আই এর দক্ষিণ-পূর্বপ্রান্ত সংলগ্ন সড়ক ও জনপথের বিপরীতপার্শ্বে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের কার্যালয় অবস্থিত। এ কার্যালয়টি ভোলা জেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সমূহে শিক্ষক নিয়োগ, পদায়ন, বদলী, পদোন্নতি, পিআরএল, পেনশন, টাইমস্কেল, ইবিক্রস প্রদান, অধীনস্ত কর্মকর্তা কর্মচারীগণের যাবতীয় আর্থিক কার্যাবলী সম্পাদন, বার্ষিক গোপনীয় প্রতিবেদন প্রস্তুত ও প্রেরণ,উপজেলা শিক্ষা অফিসারের কার্যালয় ও বিদ্যালয় পরিদর্শন, পরিবীক্ষণ,মূল্যায়ন ও শৃংখলারক্ষা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে তথ্যাদি বিনিময়, উপজেলা পর্যায়ে প্রধান শিক্ষকগণের সাথে মতবিনিময় করে থাকে। ভোলা জেলার প্রাথমিক শিক্ষার বিস্তার, মানোন্নয়ন, সাধারণ জনগণের সেবাদান এবং দেশ ও জাতির উন্নয়নে বিভিন্ন জাতীয় কর্মসূচী পালন ও বাস্তবায়নে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের কার্যালয় সর্বদা নিরলসভাবে অবদান রেখে চলেছে।

সাধারণ তথ্য

সাংগঠনিক কাঠামো

কর্মকর্তাবৃন্দ

ছবিনামপদবিফোনমোবাইলইমেইল
মোহাম্মদ ছাইয়াদুজ্জামানজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার০৪৯১-৬১৪৬৩০১৬৭৫২২৮১১০dpeobhola@gmail.com
এ.বি.এম খলিলুর রহমানসহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার০৪৯১-৬১৪৬৪০১৭১২০৭৩৬৪৩abmkhalil70@gmail.com
অসীম প্রসাদ বিশ্বাসমনিটরিং অফিসার ০৪৯১-৬১৪৬৩(অনুরোধ সাপেক্ষে)০১৭১৫২৭৫৫৩৮ashimmopesp@gmail.com

প্রকল্পসমূহ

১। ৩য় প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচীঃ

                                  ২০১১-১২ অর্থবছর থেকে ৫৮৩৫৯.০০ কোটি টাকা প্রাক্কলিত ব্যয়ে চালুকৃত জুন ২০১৬ মেয়াদে বাস্তবায়ন হচ্ছে। এর মূল লক্ষ্য হচ্ছে ১) বিদ্যালয় গমনোপযোগী সকল শিশুর বিদ্যালয়ে ভর্তি নিশ্চিত করাসহ প্রাথমিক শিক্ষাচক্র সম্পন্ন করা ২)শিশুদের ভর্তির ক্ষেত্রে সকল প্রকার বৈষম্য দূর করা ৩) সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষণ শিখন পরিবেশ উন্নতকরণ ৪)প্রাক প্রাথমিক পর্যায় থেকে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত সকল শিক্ষার্থীদের জন্য শিশুবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিত করা।

২। প্রাথমিক শিক্ষার জন্য উপবৃত্তি প্রকল্প - ৩য় পর্যায়ঃ

                                                প্রাথমিক শিক্ষার জন্য উপবৃত্তি প্রকল্প দেশব্যাপী প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের দরিদ্র ছাত্র ছাত্রীদের আর্থিক সহায়তা প্রদানের এক ইতিবাচক এবং যুগান্তকারী কর্মসূচী।  প্রাথমিক শিক্ষার জন্য উপবৃত্তি প্রকল্প প্রাথমিক স্তরের ছাত্র-ছাত্রীদের ভর্তির হার বৃদ্ধি, উপস্থিতি বৃদ্ধি,ঝরে পড়ার হার রোধকরণ,শিশুশ্রম রোধ ও দারিদ্র্যবিমোচন,নারীদের ক্ষমতায়ন নিশ্চিতকরণ এবং প্রাথমিক শিক্ষার গুণগত মান উন্নয়নে কার্যকর ভূমিকা পালন করে। প্রকল্পটির প্রথম পর্যায় ২০০২ সালের জুলাই মাসে চালু হয় এবং ২০০৮ সালের জুন মাসে শেষ হয়। প্রকল্পটির ২য় পর্যায় চালু হয় ২০০৮ সালের জুলাই মাসে এবং শেষ হয় ২০১৫ সনের জুন মাসে। বর্তমানে এ প্রকল্পটির ৩য় পর্যায় চালু রয়েছে। এ প্রকল্পটি বাংলাদেশ সরকারের শতকরা ১০০ ভাগ অর্থায়নে বাস্তবায়িত হচ্ছে। প্রাথমিক শিক্ষার জন্য উপবৃত্তি প্রকল্প ভোলা জেলার সবকটি উপজেলার সবকটি ইউনিয়নে চালু আছে।

৩। রিচিং আউট অব স্কুল চিলড্রেন(রস্ক) প্রকল্পঃ

                                         এই প্রকল্পের আওতায় ৬৮৪.৩২ কোটি টাকা ব্যয়ে দেশের অনুন্নত জনপদ এবং ক্ষুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠী অধ্যুষিত ৯০ টি উপজেলায় আনন্দ স্কুল প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে ৭-১৪ বছর বয়সী ৭৫০০০০ হত-দরিদ্র ও ঝরেপড়া শিশুর আনুষ্ঠানিক প্রাথমিক শিক্ষার দ্বিতীয় সুযোগ সৃষ্টি করা হয়েছে।শিশুদের শিক্ষার পাশাপাশি নারীর ক্ষমতায়নের উদ্দেশ্যে এ সকল স্কুলে ৯০% মহিলাকে সভাপতি এবং ৮৮% মহিলাকে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ প্রদান করা হয়েছে।এ ছাড়া প্রকল্পটির অর্থায়নে ঢাকার ফতুল্লায় একটি কারিগরি শিক্ষাকেন্দ্র চালু করে ২৫৩ জন শিক্ষার্থীকে বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণের মাধ্যমে কর্মক্ষম করা হয়েছে।ভোলা জেলার চরফ্যাশন উপজেলায় ইতোমধ্যে আনন্দ স্কুল কার্যক্রম শেষ হয়েছে।বর্তমানে দৌলতখান,বোরহানউদ্দিন,তজুমদ্দিন,লালমোহন ও মনপুরা উপজেলায় চালু রয়েছে।

৪। স্কুল ফিডিং প্রোগ্রামঃ

              প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ঝরেপড়া রোধ এবং পুষ্টিমান বৃদ্ধির জন্য পর্যায়ক্রমে ৯৬ টি দারিদ্রপীড়িত উপজেলার ২০ লক্ষ শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রতি স্কুল দিবসে ৭৫ গ্রাম হারে উচ্চ পুষ্টিমান সম্পন্ন বিস্কুট সরবরাহের কার্যক্রম চালু হয়েছে। ভোলা জেলার চরফ্যাশন উপজেলার সবকটি ইউনিয়ন এবং মনপুরা উপজেলার সবকটি ইউনিয়নে বর্তমানে এ প্রকল্পটি চালু রয়েছে। বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচীর মাধ্যমে কর্মসূচীটি বাস্তবায়িত হচ্ছে।

যোগাযোগ

ঢাকা থেকে:

             ঢাকা সদরঘাট থেকে লঞ্চে ভোলা সদর খেয়াঘাট/লঞ্চঘাট। সেখান থেকে মাহিন্দ্র আলফা বা অটোরিক্সায় ভোলা সদরের বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামাল বাস টার্মিনাল। সেখান থেকে রিক্সা বা অটোরিক্সায় জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস ( পি.টি.আই সংলগ্ন এবং সড়ক ও জনপথ অফিসের বিপরীতে )।

লক্ষ্মীপুর থেকে:

            লক্ষ্মীপুর মজু চৌধুরীর হাট/ঘাট থেকে সি-ট্রাকে বা লঞ্চে বা ফেরীতে ভোলা সদরের ইলিশাঘাট। সেখান থেকে মাহিন্দ্র আলফায় নতুন বাজার টেম্পুস্ট্যান্ড। সেখান থেকে অটোরিক্সায় বা রিক্সায় জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস ( পি.টি.আই সংলগ্ন এবং সড়ক ও জনপথ অফিসের বিপরীতে )।

বরিশাল থেকে:

            বরিশাল লঞ্চঘাট থেকে লঞ্চে ভোলা সদরের ভেদুরিয়া লঞ্চঘাট। সেখান থেকে সি.এন.জি অথবা অটোরিক্সা অথবা মাহিন্দ্র আলফা অথবা বাসে ভোলা সদরের বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামাল বাস টার্মিনাল। সেখান থেকে রিক্সা বা অটোরিক্সায় জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস ( পি.টি.আই সংলগ্ন এবং সড়ক ও জনপথ অফিসের বিপরীতে )।

অথবা,   বরিশাল লঞ্চঘাট থেকে চরকাউয়ার খেয়া পার হয়ে চরকাউয়া বাসস্ট্যান্ড। সেখান থেকে বাসে লাহারহাট লঞ্চঘাট। সেখান থেকে লঞ্চে ভোলা সদরের ভেদুরিয়া লঞ্চঘাট। সেখান থেকে সি.এন.জি অথবা অটোরিক্সা অথবা মাহিন্দ্র আলফা অথবা বাসে ভোলা সদরের বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামাল বাস টার্মিনাল। সেখান থেকে রিক্সা বা অটোরিক্সায় জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস ( পি.টি.আই সংলগ্ন এবং সড়ক ও জনপথ অফিসের বিপরীতে )।

অথবা,   বরিশাল সদর লঞ্চঘাট সিটি বহুমুখী মার্কেটের পাশে অবস্থিত বি.আর.টি.সি বাসস্ট্যান্ড/টর্মিনাল থেকে প্রতিদিন দুপুর ০২ ঘটিকায় ০১ টি বি.আর.টি.সি বাস ভোলার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। এ বাসে এসে ভোলা সদরের জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে নামতে হবে ( পি.টি.আই সংলগ্ন এবং সড়ক ও জনপথ অফিসের বিপরীতে )। এখানে উল্লেখ্য যে, এই একটি মাত্র যাত্রীবাহী বাসই বরিশাল খেকে ভোলাতে আসে।

পত্র যোগাযোগের ঠিকানা:     

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের কার্যালয়

পি.টি.আই রোড

(পি.টি.আই এর দক্ষিণ পার্শ্ব সংলগ্ন)

ভোলা।

টেলিফোন নম্বর:০৪৯১-৬১৪৬৩,০৪৯১-৬১৪৬৪

E-mail : dpeobhola@gmail.com

কী সেবা কীভাবে পাবেন

 

অফিসের কার্যক্রমঃ

 

• সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সমূহে শিক্ষক নিয়োগ, পদায়ন ও বদলী সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যাবলী ।

• শিক্ষকের এলপিআর, পেনশনসহ শৃঙ্খলামূলক কার্যক্রমসহ যাবতীয় কার্যাবলী ।

• উপজেলা শিক্ষা অফিসার এর নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষ হিসাবে যাবতীয় কার্যাবলী ।

• বিদ্যালয় পরিদর্শনের মাধ্যমে প্রাথমিক শিক্ষার মান উন্নয়ন সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যাবলী ।

• জেলা পর্যায়ে প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন সম্পর্কিত পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন সম্পর্কিত কার্যাবলী ।

• অধীনস্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আয়ন-ব্যয়ন সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যাবলী ।

• প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের যাবতীয় উন্নয়ন কার্যক্রম পরিবীক্ষণ ।

• উপবৃত্তি প্রকল্পের কার্যক্রম তদারকি।

 

নাগরিক সেবাঃ

 

• শিক্ষকদের আন্তঃজেলা বদলী।

• এলপিআর, পেনশন, টাইমস্কেল, ইবিক্রস ও পদোন্নতি প্রদান।

• বিদ্যালয় বিহীন গ্রামে বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠাকরণ ।

• বিদ্যালয়ে না যাওয়া ৬+ ও ১০+ সকল শিশুদের বিদ্যালয়ে আনার লক্ষ্যে সমাজ সম্পৃক্ত করণ।

• বিদ্যালয়ে না যাওয়া শিশুদেরকে বিদ্যালয়ে আনয়নের জন্য আকর্ষণীয় কার্যক্রম গ্রহণের উদ্যোগ ।

• বিনামূল্যে পাঠ্য পুস্তক উপজেলা পর্যায়ে সরবরাহ করণ ।

• উপজেলা পর্যায়ে উপবৃত্তি বিতরণ কার্যক্রম তদারকি সংক্রান্ত ।

• বহিঃবাংলাদেশ ছুটির আবেদন অগ্রায়ণ।

• কল্যাণ ও যৌথবীমার আবেদন অগ্রায়ণ।

প্রদেয় সেবাসমুহের তালিকা

সিটিজেন চার্টার

ক্রমিক নং

সেবা প্রদানের বিষয়

কার্যক্রম সম্পন্ন হওয়ার সম্ভাব্য সময়সীমা

বিনামূল্যে বই বিতরণ

৩০ দিন

বিএড/এমএড সংক্রান্ত প্রশিক্ষণার্থীদের নামের প্রস্তাবনা

৭ দিন

উচ্চতর পরীক্ষায় অংশগ্রহনের অনুমতি প্রদান

৭ দিন

টাইম স্কেলের আবেদন নিষ্পত্তি

৭ দিন

পদোন্নতি প্রদান

৩০ দিন

দক্ষতাসীমা আবেদন নিষ্পত্তি

৭ দিন

এলপিআর /লাম্পগ্যান্ট - আবেদন নিষ্পত্তি

৭ দিন

পেনশন কেস/আবেদনের নিষ্পত্তি

১০ দিন

জিপিএফ থেকে ঋণ সংক্রান্ত আবেদনের নিষ্পত্তি

৭ দিন

১০

জিপিএফ থেকে চুড়ান্ত উত্তোলন সংক্রান্ত আবেদনের নিষ্পত্তি

৭ দিন

১১

গৃহ নির্মাণ ও অনুরূপ আবেদন নিষ্পত্তি

৭ দিন

১২

পাসপোর্ট করনের আবেদন নিষ্পত্তি

৫ দিন

১৩

বিদেশ ভ্রমণ/গমন সংক্রান্ত আবেদন নিষ্পত্তি

৫ দিন

১৪

নৈমিত্তিক ছুটি ব্যতীত বিভিন্ন প্রকার ছুটি সংক্রান্ত আবেদন নিষ্পত্তি

৭ দিন

১৫

শিক্ষকদের বদলির আবেদন নিষ্পত্তি (জেলার মধ্যে/আন্তঃ উপজেলা)

৭ দিন

১৬

বকেয়া বিল এর আবেদন নিষ্পত্তি

৩০ দিন

১৭

বার্ষিক গোপনীয় অনুবেদন/প্রতিবেদন পূরণ /লিখন(অধস্তন অফিস থেকে প্রাপ্ত)

০৩ দিন

১৮

বার্ষিক গোপনীয় অনুবেদন/প্রতিবেদন পূরণ/লিখন

১৫ দিন

১৯

তথ্য প্রদান/সরবরাহ

সম্ভব হলে তাৎক্ষনিক অন্যথায় ৩ দিন কার্য দিবস

তথ্য অধিকার

বিজ্ঞপ্তি

আইন ও সার্কুলার